• ঢাকা, বাংলাদেশ মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:২২ অপরাহ্ন

৩ টায় ২৭ শতাংশ ভোট, ৪ টায় ৪০ শতাংশ কীভাবে সম্ভব, যা বললেন সিইসি

রিপোর্টার নাম:
আপডেট সোমবার, ৮ জানুয়ারী, ২০২৪

বাংলার কথা ডেস্ক 

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে কাস্টিং ভোটের নির্বাচন কমিশনের দেওয়া হিসাব নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ৭ জানুয়ারি ভোটের দিন বিকাল ৩টায় নির্বাচন কমিশন সচিব ২৭ শতাংশ ভোট পড়েছে বলে জানিয়েছিলেন। এরপর সাড়ে ৫টায় জানানো হয় বাকি ১ ঘণ্টায় (বিকাল ৪টায়) ১৩ শতাংশ ভোট পড়েছে।  এটা কীভাবে সম্ভব হলো- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল।

তিনি বলেছেন, টোটাল ২৯৮টি আসনের রেজাল্ট যখন আসা শুরু করলো তখন ওটা যোগ করলে একটা যোগফল বের হয়, এটা কোনো কঠিন কাজ নয়। এই যোগফল একটা এক্সেলে ফেলে দিলে একটা পারসেন্টেজ বের হয়ে আসে।

 

রাজধানীর নির্বাচন ভবনে সোমবার (৮ জানুয়ারি) দুপুরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান সিইসি।

 

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ৪১.৮ শতাংশ ভোট পড়েছে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, যখন গতকাল ২টার সময় বলি তখন এটা পুরোপুরি পার্সেন্টেজ না, আবার যখন ৪টায় সময় বলি তখনও এটা পুরোপুরি পার্সেন্টেজ না। তবে এখন সব রেজাল্ট আমাদের হাতে চলে আসছে। সেই রেজাল্টের ভিত্তিতে মোট ভোট পড়েছে ৪১.৮ শতাংশ। এটা নিয়ে কারো যদি কোনো দ্বিধা থাকে তাহলে যে কেউ এটা চ্যালেঞ্জ করতে পারে। কেউ যদি মনে করে এটা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে তাহলে সে চ্যালেঞ্জ করলে আমরা তাকে স্বাগত জানাবো।

 

প্রসঙ্গত, রোববার সন্ধ্যায় ইসি ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সিইসি জানিয়েছিলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৪০ শতাংশ ভোট পড়েছে।

 

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রায় শতভাগ আসনের ফল ঘোষণা শেষে নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ। এর মাধ্যমে দলটি টানা চতুর্থবার ক্ষমতায় আসতে যাচ্ছে।

 

রোববার দিনগত রাত ৪টা পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন থেকে বেসরকারিভাবে ঘোষিত ২৯৮টি আসনের ফলাফলে আওয়ামী লীগ পেয়েছে ২২৩টি আসন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আসন পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা, যাদের প্রায় সবাই আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা। এ পর্যন্ত ৬১টি আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছে।

 

গত দুই সংসদে প্রধান বিরোধী দলের আসনে বসা জাতীয় পার্টি এবার পেয়েছে মাত্র ১১টি আসন। যে ২৬টি আসনে তারা আওয়ামী লীগের কাছে ছাড় পেয়েছিল তার অনেকগুলোতেই জামানত খুঁইয়েছে।

 

সূত্র: যুগান্তর

 

বাংলার কথা/জানুয়ারি ০৮, ২০২৪


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো নিউজ