• ঢাকা, বাংলাদেশ রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৩৯ অপরাহ্ন

সাবেক প্রতিমন্ত্রী জিনাতুন নেসা তালুকদার আর নেই

রিপোর্টার নাম:
আপডেট রবিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাবেক প্রতিমন্ত্রী, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য, বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপিকা জিনাতুন নেসা তালুকদার মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রোবাবার ভোর সাড়ে ৫টায় ঢাকার এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। তার জ্যেষ্ঠ সন্তান মাহমুদ হাসান ফয়সল এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আম্মা অনেক দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। তিনি লাইফ সাপর্টে ছিলেন। আজ (রোববার) সকালে তিনি শেষ নি:শ^াস ত্যাগ করেছেন। আগামী কাল সোমবার বাদ জোহর রাজশাহীর টিকাপাড়া ঈদগাহ মাঠে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। বিকেলে রাজশাহীর কাদিরগঞ্জ গোরস্থানে দাফন করা হবে।

অধ্যাপিকা জিনাতুন নেসা তালুকদার দুই সন্তানের জননী ছিলেন। তিনি ছাত্রজীবনেই রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হন। এবং রাজশাহী জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করে। মৃত্যুর আগ মুহুর্ত পর্যন্ত তিনি রাজশাহী জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ছিলেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপিকা জিনাতুন নেসা তালুকদার সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন। তিনি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী হন। এরপর তিনি মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। কর্মজীবনে তিনি রাজশাহীর নওহাটা ডিগ্রী কলেজে অধ্যাপনা করেন।

মেয়রের শোক

সাবেক সংসদ সদস্য এবং সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপিকা জিনাতুন নেসা তালুকদার এর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। রোববার এক শোক বিবৃতিতে এই শোক প্রকাশ করেন রাসিক মেয়র।

শোক বিবৃতিতে রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন মহান মুক্তিযুদ্ধ ও আওয়ামী লীগে বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপিকা জিনাতুন নেসা তালুকদারের অবদান শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন।

মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ‘আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের সাহসী নেতৃত্ব, সততা ও আদর্শের প্রতি অবিচল ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপিকা জিনাতুন নেসা তালুকদার। তিনি কলেজ জীবন থেকে রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। তিনি ৬ দফা আন্দোলন ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণসহ রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে সক্রিয় ভূমিকা রাখেন। নারী অধিকার বাস্তবায়নে ভুমিকা রাখায় বেগম রোকেয়া পদক-২০১৮ এবং শিক্ষা সম্প্রসারণে অবদান রাখায় ১৯৯৮ সালে মীর মোশাররফ হোসনে পদক পান অধ্যাপিকা জিনাতুন নেসা তালুকদার। তিনি তাঁর কর্মের মাধ্যমে আমাদের মাঝে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।’

শোক বিবৃতিতে রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন মরহুমার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন ও তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

আসাদের শোক

সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপিকা জিনাতুন নেসা তালুকদার এর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাজশাহী জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ। তিনি মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

আসাদ বলেন,  জিনাতুন্নেসা ছিলেন, আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের সাহসী নেতৃত্ব, সততা ও আদর্শের প্রতি অবিচল ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপিকা জিনাতুন নেসা তালুকদার। তিনি তাঁর কর্মের মাধ্যমে আমাদের মাঝে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন বহুকাল।

এছাড়া অধ্যাপিকা জিনাতুন নেসা তালুকদারের মৃত্যুতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল শোক প্রকাশ করেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো নিউজ