• ঢাকা, বাংলাদেশ মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:০১ অপরাহ্ন

বিনামূল্যে বই পৌঁছে দেয়া নাগরিকদের কল্যানে সরকারের বিনিয়োগ

রিপোর্টার নাম:
আপডেট সোমবার, ২ জানুয়ারী, ২০২৩

বিনামূল্যে বই পৌঁছে দেয়া নাগরিকদের কল্যানে সরকারের বিনিয়োগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
রাজশাহীতে উৎসবমুখর পরিবেশে পাঠ্যপুস্তবক উৎসব দিবসে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে নতুন বই বিতরণ করা হয়েছে। রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় অগ্রণী বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়ে বেলুন-ফেস্টুন ও পায়রা উড়িয়ে এবং শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে পাঠ্যপুস্তবক উৎসবের উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের উপ-পরিচালক এই পাঠ্যপুস্তক উৎসবের আয়োজন করে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র লিটন বলেন, ২০১২ সালে দেশ বর্তমানের মতো এতো উন্নত ছিল না। তবে সেই সময়েই সারাদেশে বছরের প্রথম দিনেই শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে নতুন বই তুলে দেয়ার দু:সাহসিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রতিবছর এভাবে বই তৈরি করে বাঁধাই করে ট্রাকে করে স্কুলে স্কুলে, গ্রামেগঞ্জে, পাহাড়ে পৌঁছে দেয়া সহজ কথা নয়। প্রধানমন্ত্রী সেই কাজটি করে যাচ্ছেন সুনিপুণভাবে। এ বছর সরকার সারাদেশের ৪ কোটি ৯ লাখ শিক্ষার্থীর হাতে প্রায় ৩৫ কোটি বই বিনামূল্যে তুলে দিচ্ছে। আমি মনে করি এটি নাগরিকদের কল্যানে প্রধানমন্ত্রীর বিনিয়োগ। ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে শিক্ষিত ও প্রশিক্ষিত করে গড়ে তুলতে পারলে তারা দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তরিত হবে। এতে আমাদের সবদিক দিয়েই লাভ। কাজেই সরকার এটা বিনিয়োগ করছেন নাগরিকদের কল্যাণে, দেশবাসীর কল্যাণে। এটা অব্যাহত থাকবে। এটা আরও বেশি সম্প্রসারিত হচ্ছে।
নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের সৌভাগ্যবান উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য লিটন বলেন, যারা দেশ ও জাতি গড়বে আগামী দিনে তাদেরকে আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে না পারলে দেশের কাছে বোঝা হয়ে যাবে তারা। তারা যাতে সম্পদ হয়, দেশের জন্য আশির্বাদ হয়, সেকারণে তাদের হাতে সময় মতো বই পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। দেশে প্রায় ৭৫ শতাংশ শিক্ষিতের হার। আমরা অপেক্ষায় তাকিয়ে আছি সেই দিকে যেদিন শতভাগ শিক্ষিত জাতিতে পরিণত হবো আমরা।
দেশের উন্নয়নে বিদ্যুতের গুরুত্ব তুলে ধরে মেয়র লিটন বলেন, দেশের সকল গ্রামে, পাহাড়ে, চড়ে, দ্বিপ সহ সর্বত্র বিদ্যুত পৌঁছে দিয়েছেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী। শতভাগ বিদ্যুতায়িত দেশ দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে একমাত্র বাংলাদেশ। এটি আমাদের একটা গর্ব। আমরা আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। সম্প্রতি দেশে প্রথমবারের মতো মেট্রোরেলের উদ্বোধন হয়েছে। ২০৪১ সালে বাংলাদেশ উন্নত ধনী বিশ্বের কাতারে পৌঁছে যাবে।
রাসিক মেয়র আরো বলেন, রাজশাহীতে বিশেষায়িত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়ে আসা হচ্ছে। ইতোমধ্যে হলিক্রস স্কুল এন্ড কলেজ কার্যক্রম শুরু করেছে। নটরডেম সহ অন্যান্য বিশেষায়িত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আসলে শিক্ষাক্ষেত্রে রাজশাহী আরো এগিয়ে যাবে।
মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের উপ-পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ড. শরমিন ফেরদৌস চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার এএনএম মইনুল ইসলাম, রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মাহবুবুর রহমান শাহ, রাজশাহী জেলা শিক্ষা অফিসার নাসির উদ্দিন, অগ্রণী বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়ে সভাপতি মোশাররফ হোসেন বাচ্চু, অধ্যক্ষ সাইফুল হক ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো নিউজ