• ঢাকা, বাংলাদেশ শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন

বিএনপি নেতা চাঁদের ৩ বছরের জেল

রিপোর্টার নাম:
আপডেট রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক

চাকরি দেয়ার নামে অর্থ আত্মসাৎ ও প্রতারণার মামলায় রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদকে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে রাজশাহীর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১। রোববার বিকেলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ আল্লাম এই রায় ঘোষণা করেন। মামলার অপর দুই আসামিকে খালাস দেয়া হয়েছে। রায় ঘোষণার পর আবু সাঈদ চাঁদকে কারাগারে পাঠানো হয়। অবশ্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হুমকি দেয়ার মামলায় তিনি আগে থেকেই রাজশাহী কারাগারে বন্দি রয়েছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০৪ সালে আসামি আবু সাঈদ চাঁদ, আলিম উদ্দিন এবং ওয়াজনবী রাজশাহীর চারঘাট উপজেলায় বামনদীঘি চরঝিকড়া টেকনিক্যাল স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন। পরে ওই স্কুলের বিভিন্ন পদে নিয়োগের আশ্বাস দিয়ে বাদী ও সাক্ষীদের কাছে চাঁদা দাবি করেন।

২০০৪ সালের ডিসেম্বর মাসের বিভিন্ন তারিখে তাদের কাছ থেকে আসামিরা মোট ১৪ লাখ ৫২ হাজার টাকা নেন। পরে নিয়োগপত্রের ভিত্তিতে তারা ওই স্কুলে যোগদান করেন। এরপর বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করলেও তাদের অনুকূলে কোনো বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হয়নি। এমনকি শিক্ষার্থীদেরও কোনো নিবন্ধন হয়নি।

কিছুদিন পর তারা কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে যোগাযোগ করে জানতে পারেন, স্কুলটির কোনো অনুমোদন না থাকা সত্ত্বেও আসামিরা জেনেশুনে তাদের ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়েছেন। পরে ২০০৭ সালের ২৯ জুলাই মাসুদ রানা নামে এক ভুক্তভোগী তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

আসামি পক্ষের আইনজীবী শামসাদ বেগম মিতালী বলেন, ‘মামলায় আবু সাঈদ চাঁদকে তিন বছরের কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় বাকি দু’জনকে খালাস দেয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘এই মামলার সঙ্গে আবু সাঈদ চাঁদ কোনোভাবেই জড়িত নন। এখানে তার কোনো সই-স্বাক্ষর কিছুই ছিল না। তিনি ওই সময় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। আর এটাই তার অপরাধ। এজন্যই তাকে সাজা দেয়া হয়েছে।’

এদিকে রায় ঘোষণার পর আবু সাঈদ চাঁদের ছেলে মো. অলিভ সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি এই রায়কে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত দাবি করে বলেন, ‘জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে উদ্দেশ্যমূলকভাবে এই রায় দেয়া হয়েছে। উদ্দেশ্য, আমার বাবা যেন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে না পারেন। তবে নির্বাচনে বাবা অংশগ্রহণ করতে না পারলে ওই আসনে বাবার পক্ষে আমি অংশগ্রহণ করব।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো নিউজ