Home » উত্তরের খবর » রাজশাহী ‘বিভাগীয় ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন পাঁচ ব্যক্তি
রাজশাহী ‘বিভাগীয় ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন পাঁচ ব্যক্তি

রাজশাহী ‘বিভাগীয় ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন পাঁচ ব্যক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক ০
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ‘এটুআই’ কর্মসূচির সহায়তায় এবং রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ের উদ্যোগে রাজশাহী সার্কিট হাউসে আজ শনিবার ‘ইনোভেশন সার্কেল’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ অনুষ্ঠানে উদ্ভাবনী কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ শিক্ষক, প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও সাংবাদিকসহ পাঁচ ব্যক্তিকে ‘বিভাগীয় ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড- ২০১৬’ প্রদান করা হয়েছে।

পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন, রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ হবিবুর রহমান, বগুড়ার নন্দিগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আনোয়ার ইমাম, পাবনা সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহা. শওকাত আলী, প্রথম আলোর রাজশাহীর নিজস্ব প্রতিবেদক আবুল কালাম মুহম্মদ আজাদ ও পুঠিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) লিয়াকত আলী শেখ।

অনলাইন ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে কলেজ পরিচালনার জন্য এই পুরস্কার পেয়েছেন হবিবুর রহমান, ডিজিটাল পদ্ধতিতে বিভিন্ন ভাতা প্রদান কার্যক্রম পরিচালনার জন্য পেয়েছেন আনোয়ার ইমাম, মিসকেস নিষ্পত্তি সহজীকরণের জন্য শওকাত আলী, সিটিজেন চার্টার জার্নালিজমে বিশেষ অবদানের জন্য আবুল কালাম মুহম্মদ আজাদ ও নাগরিক সেবা প্রদানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের দৃষ্টান্ত স্থাপনের জন্য পেয়েছেন লিয়াকত আলী শেখ। সম্মাননা হিসাবে তাদের ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এম এনএন ছিদ্দিক, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ (সমন্বয় ও সংস্কার) এর ভারপ্রাপ্ত সচিব এনএম জিয়াউল আলম, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ফয়েজ আহম্মদ, ও বিআরটিএ’র চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম। এতে সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার হেলালুদ্দীন আহমদ।

অনুষ্ঠানে রাজশাহী বিভাগের সকল জেলা প্রশাসক, সহকারী কমিশনার (ভূমি),  ভূমি ও স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণকারীসহ স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সকাল সাড়ে নয়টায় শুরু হয় এবং মধ্যহ্নভোজের মাধ্যমে শেষ হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, উদ্ভাবন করতে গিয়ে ভুল হলেও সেই ভুল ধরা হবে না। ভুল থেকে শিক্ষা নেওয়া হবে। উদ্ভাবন চর্চা থেমে থাকবে না। তবে এমন উদ্ভাবনী কাজ করতে যা যেটা স্বয়ংক্রিয়ভাবে চলতে পারে। এই পুরস্কার উদ্ভাবনকে উসাহিত করবে।

অনুষ্ঠানে ‘জনপ্রশাসনে উদ্ভাবন চর্চা, অগ্রগতি, সম্ভাবনা ও করণীয়’ এর ওপরে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রোগ্রামের ক্যাপাসিটি ডেভেলপমেন্ট স্পেশালিস্ট মানিক মাহমুদ, এসিল্যান্ড অফিসকে জনবান্ধব ভূমি অফিসের রূপান্তরিত করার অগ্রগতি ও পরবর্তী করণীয় উপস্থাপন করেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার, স্বাস্থ্য বিষয়ক নির্বাচিত উদ্ভাবনী পাইলট উদ্যোগ উপস্থাপন করেন রাজশাহী ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির সহকারী পরিচালক গোপেন্দ্রনাথ আচার্য, বিআরটিএ বিষয়ক নির্বাচিত উদ্ভাবনী পাইলট উদ্যোগ উপস্থাপন করেন বিআরটিএর খুলনার উপপরিচালক জিয়াউর রহমান ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের সহকারী পরিচালক স্বদেশ কুমার দাস। অনুষ্ঠানের শুরুতে সুচনা বক্তব্য রাখেন রাজশাহীর অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মুনির হোসেন।

বাংলার কথা/মার্চ ১৯, ২০১৬