Home » অপরাধ ও আইন » লালমনিরহাটে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি, পালিয়ে রক্ষা
লালমনিরহাটে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি, পালিয়ে রক্ষা

লালমনিরহাটে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি, পালিয়ে রক্ষা

আরিফুর রশীদ, লালমনিরহাট ০
লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় সমকাল পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি করার সময় এক প্রতারককে স্থানীয় জনতা অল্পের জন্য আটক করতে পারেনি। পালিয়ে রক্ষা পেয়েছেন সাংবাদিক নামধারী ওই প্রতারক। ঘটনাটি ঘটেছে আজ ৭ মে সোমবার দুপুরে উপজেলার কাকিনা এলাকায়।

 

স্থানীয় লোকজন ও ভুক্তভোগীরা জানান, কাকিনা বাজার এলাকায় মাহমুদ কবির নামে এক প্রতারক জেলার বিভিন্ন দপ্তরে মোটরসাইকেল দাপিয়ে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি করেন। বিভিন্ন জায়গায় চাঁদাবাজি শেষে কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিজেকে কখনো দৈনিক সমকালের উত্তরবঙ্গ প্রতিনিধি, আবার কখনো লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি পরিচয়ে আজ সোমবার দ্বিতীয় দিনের মতো তিনি চাঁদাবাজি করতে যান। এসময় তার চাহিদা অনুযায়ি চাঁদা না দিলে সমকাল পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের হুমকি দেন তিনি। তার আচরণে প্রতিষ্ঠানের মালিক আজম আলীর সন্দেহ হয়। তিনি তাকে নানা রকম প্রশ্ন করতে থাকেন। প্রশ্নের সময় স্থানীয় জনতা সেখানে ভীড় জমাতে থাকে। এক পর্যায়ে অবস্থা বেগতিক দেখে সাংবাদিক নামধারী ওই প্রতারক তার সঙ্গে থাকা এক সঙ্গীসহ পালিয়ে যান। এ সময় তার পকেট থেকে বেশ কিছু  ভিজিটিং কার্ড  মাটিতে পড়ে যায়। ভিজিটিং কার্ডে নিজেকে দৈনিক সমকালের উত্তরবঙ্গ প্রতিনিধি ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিপোর্টাস ইউনিটি উত্তরাঞ্চল রংপুর এর পরিচয় ব্যবহার করা হয়েছে।

 

কাকিনা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক আজম আলী জানান, এই চত্রুটি রোববারের মতো আজ সোমবারও সমকাল সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে তার কাছে ১০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দিলে সমকাল পত্রিকার প্রথম পাতায় দুর্নীতির খবর ছাপানোর হুমকি দেন।

ভিজিটিং কার্ডে দেয়া মুঠোফোন নম্বরে মোঃ মাহমুদ কবিরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, আমি সমকালের সাংবাদিক পরিচয় দিলে আপনার ক্ষতি কি?

লালমনিরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এন.এম নাসিরুদ্দিন জানান, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বাংলার কথা/আরিফুর রশীদ/মে ০৭, ২০১৮