Today November 25, 2017, 7:42 am |
Home » সাহিত্য » কবি ইয়ামিন বসুনিয়ার একগুচ্ছ কবিতা

কবি ইয়ামিন বসুনিয়ার একগুচ্ছ কবিতা

রমজান মোবারক

কোথা আছো মুসলিম কর সবে আহ্লাদ
চেয়ে দেখ পশ্চিমে সাওমের বাঁকা চাঁদ।
বছর ঘুরে এলো সেরা মাস রমজান
সাওম,সালাত আর প্রাণ খুলে কর দান।
নফলে ফরজ হবে,ফরজ হবে সত্তর
ঝরে যাবে পাপ রাশি যেন পাতা পত্তর।
শৃঙ্খলে বাঁধা আজি বিতাড়িত শয়তান
খুশু খুজু সহ ঢালো ইবাদতে মনপ্রাণ।
কোরআনের চর্চাটা দাও আজি বাড়িয়ে
নেকী দেবেন আল্লাহ সীমারেখা ছাড়িয়ে।
দূরাচারী দূর হও,পাপাচারী দুষ্ট
পণ কর আজ হতে হবে তুমি শিষ্ট।
জেগে ওঠো বিশ্বাসী হয়ে বলে বলিয়ান
রমজানে ক্ষমা পাবে বলে খোদ মহীয়ান।
মুসলিম প্রাণ খুলে গাও তবে এই গান
আহলান ছাহলান মাহে রমাজান…..

 

আত্ম বিলাপ

আজকে তুমি ব্যস্ত অনেক,কালকে তোমার কাজ,
এমন করেই সময় গড়ায় দিন হয়ে যায় সাঁঝ।
ব্যবসা, অফিস,জমিদারি হরেক অজুহাতে,
দুনিয়া জোড়া কাজ মিটিয়ে নিত্য ফিরো রাতে।
আবার তুমি ছাত্র ভালো,ভীষণ পড়ার চাপ,
অনেক বড় মানুষ হতে বাকি দু-তিন ধাপ।
রোজ সকালে উঠতে দেরি, ব্যস্ত দুপুর ময়,
বিকেল গড়ায় খেলার মাঠে,সন্ধ্যাটা আড্ডায়।
শুতে গেলেই মুঠোফোনটা কাড়ে রাতের ঘুম,
কোন উপায়ে রাত পোহালে দিনে কাজের ধুম।
এমন করেই দিন আসে যায়,বছর যে হয় গত,
ভুলেও কভু ভেবেছ কি বয়স হলো কত?
কি কারণে সৃষ্টি তোমার ভাবো কি একবার?
মুক্ত আলো,মুক্ত বাতাস নিচ্ছ তুমি কার?
স্রষ্টা বলেন জিন আর মানব সৃষ্টি আমার লাগি,
উপাসনায় আমি ছাড়া নাইতো কোন ভাগি।
আল্লাহ তোমায় ডুবিয়ে রাখেন অপার নিয়ামতে,
তবুও তুমি বিমুখ কেন তারই ইবাদতে?
আজ নিজেকে প্রশ্ন করি,কার ইবাদত কর?
আত্মা বলে হদ্দ বোকা মনের পুজা ছাড়ো।
বেলা তোমার বসলো পাটে,বাড়লো শুধু পাপ,
কবে তুমি চলবে সোজা,মরলে যেমন সাপ?
তাইতো বলি ও ভোলা মন,আর যেও না দূরে,
নামাজ,রোজা,দীনের কাজে এবার এসো ফিরে।

অচিন পাখি
অচিন দেশের অচিন পাখি
অচিন পুরে থাক।
নিত্য তুমি মিষ্টি সুরে
এমন কেন ডাক?

রক্ত আমার হিম হয়ে যায়
শুনলে তোমার ডাক
অনেক কিছু আছে আরো
সে সব না হয় থাক।

অচিন পাখি,মিষ্টি হাসি,
মিষ্টি তোমার মুখ,
অন্তরে মোর দিচ্ছে কেন
অচেনা এক সুখ?

অচেনা কোন ছন্দে তুমি
যাচ্ছ দিয়ে শিষ,
পাইনা ভেবে কিসের নেশায়
গিলছি মরণ বিষ?

আর জনমে কোথায় ছিলে
কোন সে তমাল ডালে?
শেষ সময়ে জুটলে বুঝি
আমার পোড়া ভালে?

 

প্রিয় প্রথমা
প্রথমা তুমি এমন কেন
এতই অভিমানী,
মনটা তোমার তৈরি কিসে
নির্ণয় না জানি।

দু’দিন আগেই রাখলে বুকে
দু’দিন বাদেই পিঠে?
এতো সুন্দর এই ধরণী
লাগছে না আর মিঠে।

রাখবে যদি মুখ ফিরিয়ে
ডাকলে কেন তবে?
তোমার মতো বন্ধু এমন
আর দেখিনি ভবে।

এমন করে ডাকলে আমায়
বাড়িয়ে দিলে হাত,
কি প্রয়োজন ছিল তবে
ছাড়বে যদি সাথ।

নাইবা নিলে অমন করে
আপত্তি কি তাতে?
খুব সাধারণ বন্ধু হব
রবো তোমার সাথে।

তোমার “কাজল”নাইবা হলাম
নয় গহনা গায়ে,
নূপুর করে রাখতে যদি
জড়িয়ে তোমার পায়ে!

থাকনা তোমার বন্ধু শত
আর করিনা ভয়,
তোমার কাছে হেরেই রবো
চাইনা আমার জয়।।
প্রেয়সীর পাশাখেলা
গাংচিলটা হাওয়ায় দোলে
মেঘ হয়ে যায় পাড়,
ভাবছে মনে সংগোপনে
আকাশ বুঝি তার।

চিলের মতো ভাবনা শত
দিচ্ছে মনে দোলা,
ঘুণাক্ষরেও নেয়নি খবর
হৃদয় দুয়ার খোলা।

মরণ বাণে শ্মশান পানে
কেন্ যে ছুটে আসি?
হত বিহ্বল এই আমাকে
আসলে পরাস ফাঁসি।

মোর হৃদয়ের ক্যানভাসে তোর
মুখটা সদাই আঁকি,
কেউ না জানে খুব যতনে
তাই আড়ালে রাখি।

মনের রঙে পরাই নোলক
ঝুমকো কানে দোলে,
খুব আদরে নূপুর পরাই
পা রেখে মোর কোলে।

ললাটে লাল সূর্য আঁকি
কপোল কোলে তিল,
ঠোঁটের ছোঁয়ায় ঠোঁট এঁকে দিই,
ডাগর চোখে ঝিল।

নিত্য আমি সাজাই তোকে
মনের আবির দিয়ে,
কোন পরাণে খেলিস পাশা
এই আমাকে নিয়ে?

ফিরে আয়
বুকের বাঁকা হাড়টা নিয়ে
থাকিস কোথায় সোনা পাখি?
তুই বিহনে জগৎ মিছে
কী লাভ হবে জীবন রাখি?

আয়না ফিরে হৃদয় তীরে
বুকটা আছে তেমনি রাখা,
তোর জমিনে তোকেই মানায়
তুই ছাড়া সব ধূ ধূ ফাঁকা।

বাদলা দিনে পলিথিনে
যেমন করে মাথা ঢাকি,
হৃদয় কোনে খুব যতনে
তেমনি যে তোর মুখটা রাখি।

মোর হৃদয়ের এক পা দূরে
পা বাড়ালেই কাঁপন ধরে,
জানিস বুঝিস তবু কেন
ভোগাস আমায় এমন করে?

আর কখনো যাসনা যেন
মিথ্যে প্রেমের উজান টানে,
দিলাম তোকে জীবন লিখে
দিস ভাসিয়ে সুখের বানে।

পণ করেছি
তোর বাগানের গোলাপ হয়ে
আর কখনো দুলবো না,
তোর জানালার শার্শি ধরে
আর কখনো ঝুলবো না।

খেলার ছলেও তোকে আমার
বউ বলে আর মানবো না,
ছিঁ-বুড়ি আর গোল্লাছুটেও
আমার দিকে টানবো না।

তোর কপালে আর কোনদিন
উষ্ণ দু’ঠোট ছুঁইবো না,
কোন ভুলের চাইতে ক্ষমা
তোর সমুখে নুইবো না।

এলিয়ে দেয়া তোর খোলা চুল
ভুল করেও আর ধরবো না,
তোকে নিয়ে হৃদয় কোনে
সুখ সৌধ গড়বো না।

ভালবাসার রক্ত জবা
তোর খোঁপাতে গুঁজবো না,
তোর দুয়ারে আর কোনদিন
কোন উপহার খুঁজবো না।

আর কখনো এক থালাতে
তোর মাখা ভাত গিলবো না,
এই জনমে মন হারাতে
তোর সাথে আর মিলবো না।

মনগড়া তোর কোন অনুযোগ
আর কখনো শুনবো না,
তোর তালিকার নতুন সখা
আর কোনদিন গুনবো না।

শিশির ভেজা ঝরা বকুল
তোর লাগি আর তুলবো না,
তোর দেয়া দুখ হৃদয় থেকে
এক জনমে ভুলবো না।

বাংলার কথা/ ২৩ জুন,২০১৭

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে
সম্পাদক: শ.ম সাজু
সহকারী সম্পাদক (রংপুর বিভাগ): তিতাস আলম
২০৯ (৩য় তলা), বোয়ালিয়া থানার মোড়, কুমারপাড়া, রাজশাহী। ফোন: ০১৯২৭-৩৬২৩৭৩, ই-মেইল: banglarkotha.news@gmail.com