Today June 15, 2018, 3:02 am |
Home » উত্তরের খবর » হরেক প্রজাতির ফুল নিয়ে পুস্পমেলা শুরু

হরেক প্রজাতির ফুল নিয়ে পুস্পমেলা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক
রাজশাহীতে শুরু হয়েছে পাঁচ দিনব্যাপী ‘ওয়ান ব্যাংক পুস্প মেলা’। মেলায় ২৫০ প্রজাতির গোলাপের পশরা নিয়ে সাজানো হয়েছে ১৬টি স্টল। পাশাপাশি রয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির দেশী-বিদেশী ফুলের সমাহার।

আজ ২ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার সকালে নগরীর মনিবাজারের বৈকালী সংঘের আঙ্গিনায় আয়োজিত এ মেলার উদ্বোধন করেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার সরদার তমিজ উদ্দিন আহমেদ। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি ছিলেন ওয়ান ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম. ফখরুল আলম ও উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওয়াকার হাসান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বৈকালী সংঘের সভাপতি এ ওয়াই এম মনিরুজ্জামান ছানা।

বৈকালী সংঘের সাধারণ সম্পাদক রইছ উদ্দিন আহমেদ বাবু জানান, রাজশাহীবাসীকে নির্মল বিনোদন উপহার দিতে ১৯৮৫ সাল থেকে পুস্পমেলার আয়োজন করা হচ্ছে। প্রতিবছর এ মেলার মাধ্যমে নতুন নতুন ফুলের সাথে মানুষকে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়। এবারের মেলায় রয়েছে পপি, প্যানাজি, ভারবেনা, অর্কিড, এন্টিরাইনাস, বেগুনিয়া, ইফুরভিয়া, ক্যামেলিয়া, গজেনিয়া, নেস্টিসিয়াম, সিলভিয়া, জিনিয়া, ডানথ্রাসসহ দেশী বিদেশী শত শত প্রজাতির ফুল। এছাড়া শুধু গোলাপ ফুলই রয়েছে ২৫০ প্রজাতির। দর্শনার্থীদের ফুল চাষে অনুপ্রাণিত করাই এ মেলার উদ্দেশ্য বলে জানান তিনি।

মেলায় আসা দর্শনার্থীরা জানান, বাহারী ধরণের এতো ফুল সচারচর দেখা যায় না। ফুল দেখলে মন ভালো হয়ে যায়। এ ধরনের মেলা রাজশাহীতে প্রতিবছর আয়োজন করা প্রয়োজন।

প্রথম দিন মেলায় এসেছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের শিক্ষার্থী জান্নাতুল। তিনি বলেন, ফুল অনেক ভালবাসি। ফুল ভালবাসা বাড়ায়, অনুভূতি প্রকাশে কাজে লাগে। ফুল মানুষের অন্তরকে পবিত্র করে। প্রতিবছর এ মেলায় আমি বেড়াতে আসি। এখান থেকে হরেক প্রজাতির ফুল গাছের চারা সংগ্রহ করি।

করিমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আনোয়ার হোসেন বলেন, ফুল প্রকৃতির একটি বিশেষ অবদান। ফুল দেখলে যে কারো মন ভাল হয়ে যায়। আমাদের খারাপ সংস্কৃতিগুলোকে দূরে রাখতে ফুলের বিকল্প নেই। এ ধরনের মেলা শুধু ফুলের সাথে পরিচয় করিয়ে দেবে না, ফুল চাষে মানুষকে অনুপ্রাণিত করে।


রুবিনা নামের আরেক দর্শনার্থী বলেন, অনেক ভাল লাগছে ফুলের জগতে প্রবেশ করতে পেরে। এতো ফুল একসাথে দেখে অনেক ভাল লাগছে। পুস্পমেলা শুরু হওয়ার কথা শুনে ছেলে মেয়ে নিয়ে এসেছি মেলা প্রাঙ্গনে। বাচ্চাদের নতুন ফুলের সাথে পরিচয় হতে দেখে অনেক ভাল লাগছে। তাদের আনন্দটাই আমার কাছে অনেক।

দর্শনার্থী মিল্টন বলেন, ফুল তো সবারই ভাল লাগে। হরেক রঙের ফুলের বাহার দেখে অন্তরে অনেকটা প্রশান্তি আসে। আজ মেলায় এসেছি বেশ কিছু ফুলের চারা সংগ্রহ করতে। বাসায় ফুলের টবে সংরক্ষণ ও পরিচর্যা করে অনেক আনন্দ পাওয়া যাবে। এ ধরণের মেলা একটি ভিন্নধর্মী আয়োজন।

আয়োজকরা জানান, পুস্পমেলাকে সকলের কাছে প্রাণবন্ত করতে মেলা প্রাঙ্গনে চিত্রাঙ্কন, আবৃত্তি, ছড়াগান, গম্ভীরা ও নৃত্য প্রতিযোগিতারও আয়োজন করা হয়েছে। আগামি ৭ ফেব্রুয়ারি বুধবার পর্যন্ত চলবে এ মেলা।

বাংলার কথা/ফেব্রুয়ারি ০২, ২০১৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে
সম্পাদক: শ.ম সাজু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মোঃ হাবিবুর রহমান
২০৯ (৩য় তলা), বোয়ালিয়া থানার মোড়, কুমারপাড়া, রাজশাহী। ফোন: ০১৯২৭-৩৬২৩৭৩, ই-মেইল: banglarkotha.news@gmail.com