Today June 15, 2018, 3:27 am |
Home » অপরাধ ও আইন » নাটোরে দুবাই প্রবাসির বাড়ি থেকে চার জঙ্গী আটক

নাটোরে দুবাই প্রবাসির বাড়ি থেকে চার জঙ্গী আটক

নাটোর  প্রতিনিধি ০
নাটোরের দিঘাপতিয়া এলাকার দুবাই প্রবাসির বাড়ি থেকে চার জঙ্গীকে আটক করেছে পুলিশ। বাড়িটি ঘিরে রাখার তিন ঘন্টা পর অভিযান শেষে তাদেরকে আটক করা হয়। এসময় সেখান থেকে পাঁচটি ককটেল, চারটি চাপাতি, সাংগঠনিক বই, সালফারসহ বেশ কিছু সরঞ্জাম উদ্ধার করার দাবি করেছে পুলিশ। আর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাড়ির মালিকের ভাই রফিক সিকদারকে ডিবি পুলিশের হোফজতে নেওয়া হয়েছে।

সোমবার মধ্যরাত থেকেই দিঘাপতিয়া এলাকায় উত্তরা গণভবনের পাশের ওই বাড়িটি ঘিরে রাখে পুলিশ।  আজ ১৩ মার্চ মঙ্গলবার ভোর চারটার দিকে সন্দেহভাজন জঙ্গিদের পুলিশেরন পক্ষ থেকে আত্মসর্মপণ করতে বলা হয়। এর কিছুক্ষণ পর সেখান থেকে গুলির শব্দ শোনা যাবার দাবি করে পুলিশ। এরপর বাড়িটি লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে পুলিশ। ভেতরে থাকা এক জঙ্গি আত্মসমর্পণ করার পর বাড়ির ভেতর প্রবেশ করে পুলিশ।

 


আটককৃতরা হচ্ছে, নাটোরের সিংড়া উপজেলার আরকান্দি পশ্চিমপাড়া গ্রামের ইউনুস আলী মিয়ার ছেলে আনিসুর রহমান ওরফে আনিস (৪০), বাগাতিপাড়া উপজেলার চাপাপুকুর গ্রামের মৃত শুকুর আলীর ছেলে শফিকুল ইসলাম (৪২), একই এলাকার মৃত ভিকু মন্ডলের ছেলে ফজলুর রহমান ওরফে ফজলু (৩৮) ও নলডাঙ্গা উপজেলার খোলাবাড়িয়া পশ্চিমপাড়া গ্রামের ফোজলার রহমানের ছেলে জাকির হোসেন ওরফে জাকির মাস্টার (৩৮)।

মঙ্গলবার সকাল সাতটায় উত্তরা গণভবনের পাশে চক ফুলবাড়ি এলাকার ওই বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে প্রেস ব্রিফিং করেন নাটোরের পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার। তিনি জানান, বেশ কিছু জঙ্গী একটি বাড়িতে অবস্থান নিয়ে গোপন বৈঠক করছে এমন সংবাদে দিঘাপতিয়া এলাকার দুবাই প্রবাসি ইকবাল সিকদারের বাড়িটি সোমবার রাত সাড়ে তিনটার দিকে ঘিরে রাখে পুলিশ। এসময় জঙ্গীদের অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর তাদের আত্মসমর্পনের জন্য হ্যান্ডমাইকে বারবার আহবান জানানো হয়। কিন্তু পুলিশের আহবানে কোন ভাবেই সাড়া দিচ্ছিল না তারা। পরে ফজর নামাজের পর একজন পুলিশের আহবানে সাড়া দিয়ে ঘর থেকে বেরিয়ে আসেন। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আরো তিনজনকে আটক করা হয়। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের আটক করে নাটোর সদর থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

 


পুলিশ সুপার জানান, সকালে বাড়িটির তিনটি কক্ষে তল্লাশি চালিয়ে পাঁচটি ককটেল, চারটি চাপাতি, বেশ কিছু সাংগঠনিক বই, একটি ল্যাপটপ, চারটি মোবাইল ফোন, একটি মডেম, পাঁচটি সিম ও সিডি, তিনটি ধারালো অস্ত্র, কিছু পেট্রোলসহ একটি জারেকিন, কিছু কাঁচের বোতল ও ফসফরাস জব্দ করা হয়। একটি ঘরে বেশ কিছু ভিজিটিং কার্ড ও সাংগঠনিক বইপত্র পাওয়া যায়। পুলিশ সুপার দাবি করেন, বাড়িটি জেএমবি সদস্যদের বসবাসের উপযোগী একটি বাড়ি। এর চারদিকে উঁচু দেয়াল, ভেতরে অন্ধকার। বাড়িতে খাট, চৌকি নেই।

বাড়িটির পাশের এক বাসিন্দা জানান, সেখানে দিঘাপতিয়া কলেজের একজন ছাত্র থাকতেন। তিনি স্কাউট সদস্য ছিলেন। বাড়ির এক কক্ষ থেকে তার নাম লেখা একটি টিনের বাক্স পাওয়া গেছে।

বাড়ির মালিক ইকবাল সিকদার দুবাই থাকেন। বাড়িটি দেখাশোনা করেন তাঁর চাচাতো ভাই রফিক সিকদার। মাস খানেক আগে রফিক সিকদারের কাছ থেকে বাড়িটি ভাড়া নেয় দিঘাপতিয়া এমকে কলেজের শিক্ষার্থী আমির হামজা। এরপর থেকেই বাড়িটিতে দু-একজন মানুষের যাতায়াত ছিল। বেশির ভাগ সময় বাড়িটির গেট বন্ধ থাকতো। তবে আমির হামজাকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

 


পুলিশ সুপার আরো জানান, দেশের বিভিন্ন জেলার জঙ্গী আস্তানার যে রকম বাড়ি, এখানেও সে বাড়িটি একই রকমের। পুরো বাড়িটি ভুতুরের মতো অবস্থা। বাড়িটির তিনটি কক্ষ থাকলেও একটি কক্ষে মাত্র লাইট ছিল। আর সেখানে জঙ্গীরা অবস্থান নিয়েছিল। তবে নাটোরে তাদের নাশকতার কোন পরিকল্পনা ছিল কিনা, সে বিষয়ে বিস্তারিত জঙ্গীদের সাথে কথা বলে জানা যাবে। তবে আটককৃতদের নামে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পুলিশ সুপার বিপ্লব  বিজয় তালুকদারের নেতৃত্বে মুল অভিযান পরিচালনা করেন, গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল হাই। নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খায়রুল ইসলাম ও ফায়জুল ইসলাম, নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মশিউর রহমানসহ ডিবি পুলিশের একটি বিশেষ দল এই অভিযানে অংশগ্রহণ করে।

বাংলার কথা/নাইমুর রহমান/মার্চ ১৩, ২০১৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে
সম্পাদক: শ.ম সাজু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মোঃ হাবিবুর রহমান
২০৯ (৩য় তলা), বোয়ালিয়া থানার মোড়, কুমারপাড়া, রাজশাহী। ফোন: ০১৯২৭-৩৬২৩৭৩, ই-মেইল: banglarkotha.news@gmail.com