Today December 13, 2017, 1:59 am |
Home » অপরাধ ও আইন » নওগাঁয় র‌্যাব হেফাজতে যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ

নওগাঁয় র‌্যাব হেফাজতে যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ

মান্দা (নওগাঁ) সংবাদদাতা ০
নওগাঁর মান্দায় র‌্যাবের হেফাজতে থাকাকালীন মাজহারুল ইসলাম জিয়াস (৩২) নামের এক যুবক নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে তার পরিবার। তাদের অভিযোগ, জিয়াসকে ধরে নিয়ে গিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করার ফলে তার মৃত্যু হয়েছে।

তবে র‌্যাব এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, জিয়াস একজন অস্ত্র ব্যবসায়ী। তাকে কোন নির্যাতন করা হয়নি। গুলিসহ তাকে আটক করে নিয়ে আসার পথে সে অসুস্থ হয়ে পড়লে দ্রুত তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

জিসান নওগাঁর মান্দা উপজেলার কৈবর্ত্যপাড়া গ্রামের আনিসুর রহমান মন্ডলের ছেলে।  তিনি বলেন, আটকের পর পরিবারের সদস্যদের সামনেই র‌্যাব তাকে লাঠি দিয়ে পেটাতে শুরু করে। এরপর পেটাতে পেটাতে র‌্যাব তাকে গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। আজ ৯ সেপ্টেম্বর শনিবার সকালে পরিবারের সদস্যরা জানতে পারে জিয়াস রামেক হাসপাতালে মারা গেছে।

র‌্যাব-৫ এর জয়পুরহাট ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার মুরাদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, জিয়াসকে ৮ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যায় ৬ রাউন্ড গুলিসহ আটক করা হয়। এর মধ্যে তিন রাউন্ড বন্দুকের গুলি এবং তিন রাউন্ড ছিল পিস্তলের গুলি। এরপর জিজ্ঞাসাবাদে জিয়াস জানায়, তার হেফাজতে আরো তিনটি অস্ত্র আছে। জিয়াসে কথা মতো সেই অস্ত্র উদ্ধারে তাকে নিয়ে অভিযানে নামে র‌্যাব। কিন্তু সে অস্ত্রের সন্ধান না দিয়ে বিভিন্ন স্থানে র‌্যাবকে ঘুরাতে থাকে। এক পর্যায়ে জিয়াস গাড়ীর মধ্যে অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাকে দ্রুত রামেক হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তবে জিয়াসের ভাই আজাহারুল ইসলামের দাবি, শুক্রবার সন্ধ্যায় মান্দা উপজেলার পঁচার মোড় থেকে সাদা পোষাকে গিয়ে র‌্যাব সদস্যরা জিয়াসকে আটক করে। এরপর র‌্যাব তাকে নিয়ে বাড়িতে আসে। বাড়ির দ্বিতীয় তলায় ঘরে আটকে রেখে জিয়াসকে মারপিট করে তারা। এর পর তাকে নিয়ে র‌্যাব বাইরে যায়। রাত সাড়ে ১২টার দিকে আবার জিয়াসকে নিয়ে বাড়িতে আসে। এ সময় গ্রামের দু’জন লোককে ডেকে নিয়ে র‌্যাব সদস্যরা জানায়, জিয়াসের কাছে ৬ রাউন্ড গুলি পাওয়া গেছে। এর পর জিয়াসকে নিয়ে চলে যায় র‌্যাব সদস্যরা। শনিবার সকালে খবর পাই ভাইয়ের লাশ রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রয়েছে।

রামেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ড. আসাদুজ্জামান বলেন, হাসপাতালে নেয়ার আগেই জিয়াসের মৃত্যু হয়েছে। তবে তার শরীরে কোনো গুলি বা আঘাতের চিহ্ন ছিল না। হার্ট অ্যাটাকে তার মৃত্যু হতে পারে বলে জানান চিকিৎসক আসাদুজ্জামান।

এদিকে, শনিবার দুপুরে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের লাশ ঘরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রহিমা সুলতানা নুসরার উপস্থিতিতে জিয়াসের লাশের সুরুতহাল প্রতিবেদন তৈরী করে পুলিশ। ম্যাজিস্ট্রেট রহিমা সুলতানা নুসরা বলেন, মৃতের শরীরের কিছু আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তবে সেই আঘাতে তার মৃত্যু হয়েছে কিনা তা ময়নাতদন্তের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে।

বাংলার কথা/সেপ্টেম্বর ০৯, ২০১৭

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে
সম্পাদক: শ.ম সাজু
সহকারী সম্পাদক (রংপুর বিভাগ): তিতাস আলম
২০৯ (৩য় তলা), বোয়ালিয়া থানার মোড়, কুমারপাড়া, রাজশাহী। ফোন: ০১৯২৭-৩৬২৩৭৩, ই-মেইল: banglarkotha.news@gmail.com