Today June 15, 2018, 3:10 am |
Home » উত্তরের খবর » চারঘাটে প্রশাসনের নাকের ডগায় চলছে অবৈধ পুকুর খনন

চারঘাটে প্রশাসনের নাকের ডগায় চলছে অবৈধ পুকুর খনন

মোজাম্মেল হক, চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধি ০
সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে দীর্ঘদিন ধরে রাজশাহীর চারঘাটে চলছে পুকুর খনন। পুকুর খননকারী ব্যক্তিরা প্রভাবশালী হওয়ায় স্থানীয়রা প্রতিবাদ করেও কোন সুফল পাচ্ছে না। ফলে অনেকটা নির্বিঘ্নেই চলছে পুকুর খননের মহোৎসব। অভিযোগ উঠেছে, স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে দিন রাত সমান তালে চলছে পুকুর খননের কাজ। তবে স্থানীয় প্রশাসনের দাবি, পুকুর খননের খবর কেউ তাদের জানায়নি। অভিযোগ পেলে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্থানীয়রা জানায়, দীর্ঘদিন ধরেই চারঘাট উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পুকুর খনন করছে এক শ্রেণীর অসাধু ব্যক্তি। অতি মুনাফালোভী ব্যক্তিদের এমন কর্মকান্ডে পরিবেশের উপর চরম ঝুঁকি পড়েছে বলে মনে করেন এলাকার সচেতন মহল।

উপজেলার নিমপাড়া, ভায়ালক্ষীপুর, শলুয়া ও ইউসুফপুর ইউনিয়নে বেশ কিছু জমি লিজ নিয়ে একটি সংঘবদ্ধদল গত কয়েক মাস ধরেই ধানী জমিতে পুকুর খনন করলেও রহস্যজনক কারনে বন্ধ হয়নি পুকুর খনন। এদিকে, গত কয়েকদিন ধরে উপজেলার ইউসুফপুর ইউনিয়নের বাহাদুরপাড়া মাঠে সমতল ধানী জমি কেটে পুকুর খনন করছেন ওই এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তি অশ্বিনী কুমারের ছেলে অসিত কুমার দাশ ও অসিম কুমার দাশ। তারা দুই সহোদর প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রায় দুই বিঘা জমিতে খনন করছেন পুকুর। এতে করে অসিত ও অসিম লাভবান হলেও ক্ষতির আশংকা করছেন আশপাশের জমির মালিকরা।

ইউসুফপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিউল আলম রতন বলেন, জমির শ্রেণী পরিবর্তন করতে হলে সরকারি অনুমতি প্রয়োজন। তাছাড়া সমতল ধানী জমি এভাবে কেটে পুকুর খনন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ হলেও অসিত ও অসিম সমতল জমিতে পুকুর খনন করছেন। এতে করে তারা দুই ভাই লাভবান হলেও ক্ষতির মুখে পড়তে পারে পরিবেশ ও আশের পাশের জমির মালিকরা।

এলাকার একাধিক ব্যক্তি জানান, অসিত ও অসিম কিছু দিন থেকে দুটি ড্রেজার মেশিন দিয়ে সমতল জমির মাটি কেটে বিভিন্ন ইট ভাটায় বিক্রি করে সেখানে বানাচ্ছেন বিশাল এক দিঘী। এতে করে আশপাশের জমির ক্ষতি ছাড়াও ধান উৎপাদনে চরম ক্ষতির মুখে পড়তে পারে এলাকার মানুষ।

অভিযুক্ত অসিত ও অসিমের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, আমরা পুকুর খনন করছি না। আমরা এক ব্যক্তিকে জমি লিজ দিয়েছি। তারা পুকুর খনন করছে। এতে পরিবেশের বা আশপাশের জমির ক্ষতি হবে বলে আমরা মনে করি না।

চারঘাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন বলেন, জমির শ্রেণী পরির্বতন করে পুকুর খনন পুরোপুরি নিষিদ্ধ। সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কেউ পুকুর খনন করলে অভিযোগের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

চারঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম বলেন, পুকুর খননেন অভিযোগ পেয়ে বাহাদুরপাড়া মাঠে ভূমি অফিসের লোক পাঠানো হয়েছিল। তাদের পুকুর খনন বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এরপরও তারা পুকুর খনন অব্যাহত রাখলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাংলার কথা/মোঃ মোজাম্মেল হক/জানুয়ারি ২০, ২০১৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে
সম্পাদক: শ.ম সাজু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মোঃ হাবিবুর রহমান
২০৯ (৩য় তলা), বোয়ালিয়া থানার মোড়, কুমারপাড়া, রাজশাহী। ফোন: ০১৯২৭-৩৬২৩৭৩, ই-মেইল: banglarkotha.news@gmail.com