Today October 18, 2017, 2:48 am |
Home » উত্তরের খবর » অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ভার্কের নির্বাহী পরিচালকসহ নয় কর্মকতার বিরুদ্ধে মামলা

অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ভার্কের নির্বাহী পরিচালকসহ নয় কর্মকতার বিরুদ্ধে মামলা

মোহনপুর (রাজশাহী) প্রতিনিধি ০
ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক) এনজিও’র নির্বাহী পরিচালকসহ নয় কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে মোহনপুর থানায় মামলা হয়েছে।

মোহনপুর এরিয়ার ছয়টি শাখার শাখা ব্যবস্থাপকগণ সকল স্টাফের পক্ষে বাদি হয়ে রাজশাহীর আমলী ১নং আদালতে (মোহনপুর) পৃথক পৃথকভাবে ৬টি মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাগুলো তদন্ত করার জন্য মোহনপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসিকে) নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, মামলার বাদিরা ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক) এনজিও’তে যোগদান করে দীর্ঘদিন ধরে চাকরি করে আসছেন। চাকরিতে যোগদানের পর থেকে তারা বেতন থেকে নিয়মানুসারে কল্যাণ ফান্ড, প্রভিডেন্ড ফান্ড, গ্রাচ্যুইটি ফান্ড, কো-অপারেটিভ ফান্ডে কুপনের মাধ্যমে ১০ বছর ধরে নিয়মিত টাকা জমা দিয়ে আসেন। কিন্তু তাদের এসব ফান্ডের জমা টাকা ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক) নির্বাহী পরিচালক শেখ আব্দুল হালিম (৬৫), উপ-নির্বাহী পরিচালক ইয়াকুব হোসেন (৬২), অর্থ ও প্রশাসন বিভাগের পরিচালক আনোয়ার হোসেন (৬৫), সাবেক সেক্রেটারী সহযোগী সমন্বয়কারি ও কো-অপারেটিভ সোসাইটি শহিদুল ইসলাম (৬০), সহ-সম্বয়কারি (প্রশাসন) ইউসুফ হোসেন (৪৫), কো-অপারেটিভ সোসাইটির সহযোগি সমন্বয়কারি ও সেক্রেটারী মাসুদ রায়হান (৪৩), অভ্যন্তরীন প্রধান নিরক্ষক রায়হান উদ্দিন সরকার (৪৮), ফেরদৌস রহমান (৪০), কোষাধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর রশিদ মৃধা (৪৫) মিলে এক কোটি ১২ লাখ ৯৪ হাজার ৭০৫ টাকা আত্মসাত করেন।

মামলায় আরো উল্লেখ করা হয়েছে, কো-অপারেটিভ সোসাইটির নামে প্রত্যেক স্টাফের কাছ থেকে প্রতিমাসে সর্বনিম্ন ৫শ’ টাকা বেতন কর্তন করে আত্মসাত করেন মামলার আসামিরা। এছাড়াও দুযোর্গ কবলিত এলাকার ভার্কের ক্ষতিগ্রস্ত সদস্যদের ঋণের টাকা মওকুফের জন্য সঞ্চিতি করা হলেও চলতি অর্থ বছরের জুলাই মাসে এলএলপি ফান্ডের প্রায় এক কোটি টাকা ভার্কের সকল শাখা অফিস হতে ডকুমেন্ট মুছে দিয়ে ভূয়া সমন্বয় দেখিয়ে আত্মসাত করেন তারা।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, বাদি, স্বাক্ষী এবং অন্যান্য স্টাফেরা তাদের জমাকৃত টাকা ফেরত চাইলে ২০১৭ সালের ২১ আগস্ট মোহনপুর শাখা অফিসে উক্ত কর্মকর্তারা প্রাপ্য টাকা ফেরত দিতে অস্বীকার করে এবং চাকরিচ্যুতি ও প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করেন। মোহনপুর এরিয়ার ছয়টি শাখার শাখা ব্যবস্থাপক সকল স্টাফের সাথে আলোচনা করে গত ৫ সেপ্টেম্বর নির্বাহী পরিচালকসহ ৯ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আদালতে পৃথক পৃথক ছয়টি  মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মোহনপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম মাসুদ পারভেজ জানান, আদালত থেকে ছয়টি মামলা থানায় এসেছে। মামলাগুলো তদন্ত করে সঠিক তথ্য আদালতে পাঠানো হবে।

বাংলার কথা/এম এম মামুন/সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৭

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে
সম্পাদক: শ.ম সাজু
সহকারী সম্পাদক (রংপুর বিভাগ): তিতাস আলম
২০৯ (৩য় তলা), বোয়ালিয়া থানার মোড়, কুমারপাড়া, রাজশাহী। ফোন: ০১৯২৭-৩৬২৩৭৩, ই-মেইল: banglarkotha.news@gmail.com